হোম কোয়ারেন্টিন যুগে যুগে

(লেখাটা কাল্পনিক। কোন ব্যক্তি, গোষ্ঠী বা কারো অনুভূতিতে আঘাত দেবার জন্য নয়) 

তোমরা পারো বটে! কী অদ্ভত তোমাদের নিয়ম। আজ যাকে হোম কোরেন্টিন বলছ, আমাদের কাছে তা হাজার বছরের পুরানো। তোমরা ধর্মের নামে, জাত-পাতের নামে, সাদা-কালোর দোহাই দিয়ে, পেশার দোহাই দিয়ে, আমাদের থেকে যে নিরাপদ দুরত্ব বজায় রেখে আসছো, তার একটাও কি তোমাদের কোরেন্টিন নিয়ম থেকে বিচ্ছন্ন কিছু?
এই যে তোমরা এখন বলছ- ধরা যাবে না, ছোঁয়া যাবে না, একসাথে থাকা যাবে না, পাশিপাশি খাওয়া যাবে না, হাঁটা যাবে না, হাতে হাত রাখা যাবে না, এক শশ্মানে দাহ্য হবে না। এতদিন তোমরা অচ্ছুত, অস্পৃশ্য, জাত, ধর্মের কথা বলে যে দেয়াল তৈরী করে রেখে ছিলে, সেই দেয়ালে আজ তোমরাই বন্দি!  

আমরা ছিলাম বলেই তো তোমরা ভদ্দোরনোক। কিসের এত অহংকার তোমাদের? কখনও কি ভেবে ছিলে, আমাদেরমত এমন কোয়ারেন্টিনে একদিন তোমাদেরও থাকতে হবে?  সবকিছু কী সব সময় একই নিয়মে চলে? 

আজ তোমারা তোমাদের হাত দুটোকেও  বিশ্বাস করতে পারছ না! সব কিছুতেই সন্দেহ তোমাদের! স্ত্রী, সন্তান, আত্নীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব কাউকে বিশ্বাস করছ না তুমি! অদ্ভত নিয়মের জালে আটকে গেছো তুমি। কেমন লাগছে তোমার? অথচ বছরের পর বছর, প্রজন্মের পর প্রজন্ম ধরে তোমরা আমাদের কোরেন্টিনে রেখে দিয়েছ। একবারও বুঝতে চেষ্টা করেছে এই বিচ্ছন্নতা কতটা যন্ত্রণার? 

আমরা তোমাদের ভোগ বিলাশ, শান শওকতে কোন দিন ভাগ বসাতে চাইনি। তোমরা বন ধ্বংস করেছো, সাগর, নদী দূষিত করেছে, পাহাড় কেটে নগর বানিয়ে নাগরিক হয়েছো। আমরা কোন  অভিযোগ করিনি। আজও কোন অভিযোগ নেই। শুধু মনে করিয়ে দিতে চাইছি আমারও তোমাদের মত রক্ত মাংসের মানুষ। এই নগরে তোমাদের তৈরী হোম কোরেন্টিনের বাসিন্দা।

এই আকাশ, বাতাস, রোদ, বৃষ্টি, নদী, সমুদ্র, পাহাড়, প্রাণ, প্রকৃতি সৃষ্টিকর্তা তো তোমার, আমার, আমাদের সকলের জন্য সমান করেই সৃষ্টি করেছে। অথচ যে নগরের আলো আধারিতে তোমরা যখন বেলজিয়ামের স্বচ্ছ কাঁচের গ্লাসের টুংটাং শব্দে রক মিউজিকের তালে উন্মত্ত থেকেছো, আমরা তখন এবড়ো থেবড়ো এ্যালুমিনিয়োমের গ্লাস হাতে  এককাপ চায়ের জন্য তোমাদের কোরেন্টিনের সময়ের অধিক দূরুত্বে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করেছি এককাপ চা খাব বলে। তোমারা উপর ঢেলে দিয়েছ! আমারা কী কোভিড-১৯ এর চেয়েও ভয়ংঙ্কর ছিলাম? সামান্য এক কাপ চা খাওয়ার বন্দবস্তও তোমরা আমাদের জন্য রাখোনি! 

আসলে বিচ্ছিন্ন হতে হতে তোমরা কতটা বিচ্ছন্ন হয়েছো নিজেরাই বুঝতে পারোনি। তোমাদের পারস্পরিক অবিশ্বাস এমন পর‌্যায়ে পৌছিয়েছে, এখন তোমরা আর তোমাদের নিজের হাতকেই বিশ্বাস করতে পারছ না। 

করোনা ভাইরাস নামক যে অদৃশ্য শক্তি আজ তোমাদের কোয়ারিন্টেনে পাঠিয়েছে সেই অদৃশ্য শক্তিকে পরজিত করার লড়াইয়ে তোমরা অবশ্যয় জয়ী হবে। সেদিন তোমরা, আমরা, আমরা সকলে একসাথে কোয়রেন্টি থেকে বেরিয়ে আসব। একে অপরকে জড়িয়ে ধরে কোলাকুলি করব, একসাথে, এক টেবিলে পাশাপাশি বসে চা খাবো, উপভোগ করব এই অবারিত আকাশ, নির্মল বাতাস, নদী, পাহাড়, জল, জঙ্গল, প্রাণ, প্রকৃতি…

১ জনের ভালো লেগেছে